CePrA->Banking News Link
Banking News Link

08 May 2021

Top Stories

Bangladesh Bank makes cash-on-delivery services cashless


New Age, 08 May, 2021

The Bangladesh Bank has barred cash transactions between courier service providers and sellers of online platforms against delivery of products on cash-on-delivery terms through the courier service... ...More

Banking

ব্যাংকে নতুন নোটের সঙ্কট


দৈনিক ইনকিলাব, 07 May, 2021

আসন্ন ঈদকে সামনে রেখে বাংলাদেশ ব্যাংক ১৪ হাজার কোটি টাকার নতুন নোট ছাড়লেও সঙ্কট দেখা দিয়েছে নতুন নোটের। বিশেষ করে ছোট ১০ ও ২০ টাকার নতুন নোটের সঙ্কটই বেশি। কোন ...More

Economy

Virus hurts RMG export to US

Jan-Mar recovery slower than in China, Vietnam

The Financial Express, 07 May, 2021

...More

Stock

DSEX crosses 5,600 mark as rally continues

DSE turnover hits three-month high

The Financial Express, 07 May, 2021

...More

Article and Interview

Central VAT registration in Bangladesh: An appraisal


The Financial Express, 29 Apr, 2021

...More

Trade and Industry

Bond facility

Customs fear abuse by BIN-locked firms

Customs houses alerted

The Financial Express, 07 Apr, 2021

The customs bond authority has suspended some 700 bond licences of export-oriented units in recent times. ...More

International

৭০ বছরের মধ্যে দ্রুত বাড়ছে ব্রিটিশ অর্থনীতি


বণিক বার্তা, 08 May, 2021

এক বছরেরও বেশি সময় ধরে কভিড-১৯ মহামারীজনিত বিধিনিষেধের মধ্যে ছিল যুক্তরাজ্য। এরপর মার্চ থেকে বিধিনিষেধ শিথিল করতে শুরু করে প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের সরকার। ...More

Miscellaneous

৩ হাজার কোটি টাকার ঋণ রেখে গেলেন আসলামুল হক


বণিক বার্তা, 06 Apr, 2021

জমি কেনাবেচার মধ্যস্থতাকারী হিসেবে নব্বইয়ের দশকে ব্যবসায় নাম লেখান আসলামুল হক। পরবর্তী সময়ে ছোটখাটো ঠিকাদারি, ট্রেডিং ও রিয়েল এস্টেটের ব্যবসায় যুক্ত হন তিনি। ২০০৮ সালে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর বিপুল গতিতে বাড়তে থাকে তার ব্যবসার পরিধি। নেমে পড়েন ভাড়ায় চালিত বিদ্যুৎ উৎপাদন ব্যবসায়। অনুমোদন পেয়ে যান তিনটি রেন্টাল ...More

Disclaimer: Banking News Link, an initiative of Center for Professional Advancement, contains links to important banking and business news. However, providing a link does not necessarily imply an endorsement of the contents of the linked site.
Old news is available from 21-06-2016

News Headlines at a Glance

৭০ বছরের মধ্যে দ্রুত বাড়ছে ব্রিটিশ অর্থনীতি

Bangladesh Bank makes cash-on-delivery services cashless

রফিক সাহেবের মুখটা তেতো হয়ে আছে। নিউজটা খুঁজে বের করা দরকার। তার আগে তিনি পিয়ন নাজমুলকে ডেকে চা দিতে বললেন। নাজমুল চোখে মুখে বিস্ময় নিয়ে চা আনতে বেরিয়ে গেলো।

এখন বেলা এগারটা। রফিক সাহেব এই সময়ে চা খান না। তিনি সকাল সাড়ে নয়টার মধ্যেই অফিসে ঢুকেন। ঢুকেই এক কাপ চা খান। আরেক কাপ চা খান দুপুরে খাবারের পর।

শুধু চা এর ব্যাপারেই না, অফিসের সব কাজেই তিনি একটা নিয়ম মেনে চলেন। তিনি খুব মেধাবী না, তবে নিয়মনিষ্ঠ। নিয়মানুবর্তিতার ফল তিনি হাতে হাতে পেয়েছেন।

একটা ঘটনা তাঁর মনে পড়ছে। তাঁর ব্যাংকিং ক্যারিয়ারের শুরুটা হয়েছিল হেড অফিসে। কাজ করতেন বড় স্যারদের সাথে। তাদের মধ্যে একজন একদিন উনাকে ডেকে পার্সোনাল সার্কুলার ফাইলটা দিয়ে বললেন, "রফিক সাহেব, এই সার্কুলারগুলো কপি করে নিজের জন্য একটা ফাইল বানিয়ে নিন।"

রফিক সাহেব সার্কুলার ফাইলটা কপি করে নিলেন। তারপর ফাইলটা ফেলে না রেখে সার্কুলারগুলো পড়ে ফেললেন। সেই থেকে নতুন কোন সার্কুলার এলেই তিনি নিজের সার্কুলার ফাইলটা আপডেট করে ফেলতেন। একটা কপি সেই স্যারকেও দিতেন। স্যার খুব খুশি হতেন।

এই ছোট্ট একটি অভ্যাস তাকে অনেক সুবিধা দিয়েছিল। অফিসের সবাই জানতেন রফিক সাহেবের কাছে আপডেটেড সার্কুলার আছে। সবাই ছোট বড় নানা বিষয়ের সার্কুলারের জন্য রফিক সাহেবের কাছে আসতেন। রফিক সাহেবের লাভটা হত যে- তিনি সবসময়ই বিষয়গুলোর চর্চার মধ্যে থাকতেন এবং আপডেটেড থাকতেন। বড় স্যাররা পর্যন্ত তাকে সমীহের চোখে দেখতেন। তিনি কিছু বললে ওটাই মোটামুটি ফাইনাল বলে ধরে নেয়া হত।

'স্যার পানি দেব?' চা রাখতে রাখতে নাজমুল জিজ্ঞাসা করল।
'না, ঠিক আছে' বলে রফিক সাহেব নিজেই পানি ঢেলে খেয়ে নিলেন।

দীর্ঘ পঁচিশ বছরের ব্যাংকিং ক্যারিয়ারে তিনি হেড অফিস থেকে ব্রাঞ্চে ঘুরে আবার হেড অফিসে আইডি (ইন্টারন্যাশনাল ডিভিশন)-এর হেড। কিন্তু ইদানীং চিত্রটা পাল্টে যাচ্ছে।

আজকের ব্যাপারটাই ধরা যাক। সকাল দশটায় ম্যানেজমেন্ট কমিটির মিটিং ছিল। এমডি সাহেব মিটিংয়ে আজকের একটা নিউজ দিয়ে আলোচনা শুরু করলেন। একটা নামকরা পত্রিকা তাদের ব্যাংক নিয়ে একটি নেগেটিভ রিপোর্ট করেছে। কিছু তথ্য-উপাত্তও তারা দিয়েছে।

রফিক সাহেব নিউজটা পড়েননি। একটি ভালো মানের ইংরেজি পত্রিকা উনি প্রতিদিন পড়েন। কিন্তু আলোচিত নিউজটি অন্য পত্রিকার।

এমডি সাহেব আলোচনার মাঝে বারবার উৎসুক চোখে রফিক সাহেবের দিকে তাকাতে লাগলেন কিছু শোনার অপেক্ষায়। শেষে বলেই ফেললেন, 'কি রফিক সাহেব, আপনি কী বলেন?'

রফিক সাহেব কী বলবেন ভাবছেন। এমডি সাহেব হেঁজিপেঁজি লোক না। আন্দাজে কিছু বললে তিনি ঠিকই ধরে ফেলবেন। এত ব্যস্ততার মাঝেও তিনি প্রচুর পড়াশোনা করেন। বাংলাদেশ ব্যাংক যখন প্রথম Basel-II এর গাইডলাইনটা দিয়েছিল, তখন উনি ডিএমডি। দিনের একটা সময়ে বোর্ডরুমের দরজা বন্ধ করে গাইডলাইনটা পড়তেন। ব্যাংকে উনিই সম্ভবত সবার আগে গাইডলাইনটা পড়ে শেষ করেছিলেন।

'স্যার, নিউজটা আমার পড়া হয়নি' রফিক সাহেব উত্তর দিলেন।

ব্যাপারটা এখানেই স্বাভাবিকভাবে শেষ হওয়ার কথা ছিল, কিন্তু হলো না। পাশ থেকে রইস সাহেব বললেন, 'স্যার, আমাদের বয়স হয়ে যাচ্ছে তো, এখন আর আগের মত আপডেটেড থাকতে পারি না'।

কথাগুলো যতটুকু নির্দোষ সমবেদনা বলে মনে হচ্ছে, আসলে তা না। রইস সাহেব কখনই আপডেটেড থাকেন না। এর জন্য মাঝে মাঝে এমডি সাহেবের কাছে ধমকও খান। তাতে অবশ্য কোন কাজ হয় বলে মনে হয় না। আজ যখন দেখা গেলো রফিক সাহেব নিউজটা পড়েননি, তখন রইস সাহেব টেনে রফিক সাহেবকে নিজের কাতারে নামিয়ে আনতে চাইলেন।

রফিক সাহেব বিনয়ী মানুষ। নিজেকে রইস সাহেবের চেয়ে শ্রেষ্ঠ তিনি কখনই ভাবতে চান না। কিন্তু তাঁর আপত্তি অন্য জায়গায়। বয়স হয়ে যাচ্ছে এই অজুহাতে তিনি অন্য কারো করুণার পাত্র হতে চান না। এমডি সাহেব এই বয়সে পারলে তিনি কেন পারবেন না?

আপডেটেড থাকার জন্য আরও কয়েকটা পত্রিকা তিনি পড়তে পারেন ঠিকই; কিন্তু শুধু নিউজ পড়ে এত সময় তিনি ব্যয় করতে চান না। এতে তাঁর অন্যান্য কাজকর্মে ব্যাঘাত ঘটবে। তা ছাড়া কয়টা পত্রিকা তিনি পড়বেন? ভালো পত্রিকার সংখ্যাও তো কম না।

'আসসালামু আলাইকুম। স্যার আসব?' উনার চিন্তায় ছেদ পড়ল। হাসি হাসি মুখে হাসান দরজায় উঁকি দিল।
'ওয়াআলাইকুমুসসালাম। জি আসেন।'

হাসানকে দেখলেই রফিক সাহেবের মনটা ভালো হয়ে যায়। সারাক্ষণ এত হাসি হাসি মুখ করে ছেলেটা থাকে কিভাবে? মুখের তেতো ভাবটা অনেকটাই কেটে গেলো হাসানের হাসি দেখে।

হাতের ফাইলটা এগিয়ে দিতে দিতে হাসান বলল, 'স্যার নিউজটা পড়েছেন?'
'আপনারা এত নিউজ রাখেন কিভাবে?' রফিক সাহেবের অবাক জিজ্ঞাসা।
'কি যে বলেন স্যার। আপনিই তো সব সময় আমাদের আপডেটেড থাকতে বলেন।' লাজুক হেসে বলল হাসান।
'তা ঠিক আছে। আপনি কি পত্রিকাটি নিয়মিত পড়েন?'
'জি না স্যার। আমি অন্য পত্রিকা পড়ি; কিন্তু সাথে প্রতিদিনই ব্যাংকিং নিউজ লিংক পড়ি। ওখানেই নিউজটা পেয়েছিলাম।'
'ব্যাংকিং নিউজ লিংক কী?'
'ও আচ্ছা স্যার, আপনাকে আগে বলা হয়নি। ব্যাংকিং নিউজ লিংক একটা ওয়েবপেইজ। এখানে প্রতিদিনের ব্যাংকিং নিউজের লিংক থাকে। একনজরেই সব নিউজ পাওয়া যায়।'
'তাই নাকি!' খুশি হলেন রফিক সাহেব।

হাসানের নিকট থেকে এড্রেস নিয়ে তিনি ওয়েবপেইজটিতে ঢুকলেন। সমস্যার এত সহজ সমাধান পেয়ে তিনি মুগ্ধ। মুখের তেতো ভাব পুরোটাই কেটে গেলো রফিক সাহেবের।

[ঘটনাটি কাল্পনিক।]



Leave your Comments

Comment Policy